1. altafbabu1@gmail.com : news :
  2. altafbabu1@gmail.com : Satkhira Times : Satkhira Times
September 16, 2021, 5:00 pm
Title :
অনলাইন সংবাদপোর্টাল নিবন্ধন একটি চলমান প্রক্রিয়া, হাইকোর্টের নির্দেশনা এক্ষেত্রে শৃঙ্খলা বিধানে সহায়ক-তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী আশাশুনির শ্রীউলায় বানভাসি মানুষের মাঝে রোটারী ক্লাব অব জাহাঙ্গীরনগর ঢাকা’র খাদ্য সহায়তা বিতরণ খুলনা জেলায় করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন আট হাজার নয়শত ৮৫ জন আসক ও স্বদেশের প্যানেল আইনজীবীদের মতবিনিময় সভা কলারোয়ার দেয়াড়া ইউপি নির্বাচনে খোর্দ্দে নৌকা প্রতীকের বিশাল জনসভা টাটাক্রপকেয়ার কোম্পানীর পক্ষ থেকে কৃষক প্রশিক্ষণ দেবহাটায় শান্তি দিবস উপলক্ষে ১৫ দিনব্যাপি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন পাটকেলঘাটায় নৌকা প্রতীকের বিভিন্ন স্থানে পথসভা অনুষ্ঠিত ৪ দফা দাবিতে সাতক্ষীরায় ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র শিক্ষক পেশাজীবী সংগ্রাম পরিষদের মানববন্ধন জিডিপিতে মৎস্যখাত বড় অবদান রাখছে -নারায়ণ চন্দ্র চন্দ

কলারোয়ায় জলাবদ্ধতা নিরসনে উপজেলা চেয়ারম্যান লাল্টুর বিরুদ্ধে আ’লীগ নেতা ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক শহিদুল ইসলামের সংবাদ সম্মেলন

  • আপডেট সময় Saturday, August 7, 2021

নিজস্ব প্রতিনিধি : কলারোয়া পৌর আ’লীগের সাধারন সম্পাদক ও জলাদ্ধতার কারনে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক শহিদুল ইসলামের আয়োজনে এক সাংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার(৭ আগষ্ট) বেলা ১ টার দিকে পৌরসভা মিলানয়তনে অনুষ্ঠিত সংবাদ
সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পৌরসভাধীন মুরারীকাটি গ্রামের কৃষক শহিদুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘ ২১ বছর যাবৎ জলাবদ্ধতার সৃষ্টির কারনে মুরারীকাটি মাঠের ২ হাজার ৫শত’ বিঘার মতো জমিতে আমন ফসলের চাষ করা সম্ভব হয় না। সম্ভব না হওয়ার কারন হিসাবে তিনি কলারোয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মুরারীকাটি গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা আমিনুল ইসলাম লাল্টুর অপরিকল্পিতভাবে মাছ চাষের জন্য ঘের সৃষ্টি ও ওই মাঠের দক্ষিণ দিকে ভেড়ী বাঁধের কারনে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকার কারন বলে জানান।

তিনি আরও বলেন, তার পরেও বিকল্পভাবে সেচের মাধ্যমে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করে প্রান্তিক কৃষকের আড়াই হাজার বিঘা আমন ধান চাষ করার উপযুক্ত করে তোলার লক্ষ্যে স্থানীয়দের নিয়ে একটি ব্যবস্থাপনা কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা বিল থেকে ড্রেণ নির্মান করে পাম্পের মাধ্যমে বেতনা নদীতে পানি অপসারন এবং মাঠের উত্তর পার্শ্বে পানি নিষ্কাশনের জন্য বিকল্প চাঁন মল্লিকের খাল সংস্কার করে পানি প্রবাহের সৃষ্টি করার জন্য জনস্বার্থে কালভাটের মুখে বাঁধ সৃষ্টি করা হয়।

এ ভাবে পানি নিষ্কাশনের ফলে দীর্ঘ ২১ বছর পর ওই ২ হাজার ৫শত’ বিঘা জমিতে কৃষকরা চাষযোগ্য করে তুলে এ বছর-২১’ আমন মৌসুমে স্ব-স্ব জমিতে প্রান্তিক কৃষকরা আমন ধান রোপন করেন।

কিন্তু ব্যবস্থাপনা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক পানি নিষ্কাশনের ফলে জমি চাষযোগ্য হলেও উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টুর মাছের ঘেরের পানি শুকিয়ে যাওয়ায় তার প্ররোচনায়, পরিকল্পনা ও নির্দেশে উক্ত পার্শ্বেও পানি
প্রবাহের জন্য খাল উন্মুক্ত না করে কালভাটের মুখ খুলে দেওয়ায় আবারও ফসলি জমিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে আড়াই হাজার বিঘা জমির ধান নষ্ট হয়েছে।

তিনি ক্ষোভের সাথে বলেন কালভাটের মুখ খুলে দিয়ে পানি ছেড়ে দেয়ায় বিলে আমন ফসল চাষকৃত হাজার-হাজার কৃষকরা আজ একদিকে ক্ষতিগ্রস্থ, অন্যদিকে উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টুর মাছের ঘের আজ পানিতে পরিপূর্ন থাকায় তার ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটেছে।

তিনি দু:খের সাথে আরও বলেন, আমিনুল ইসলাম লাল্টু ইতোমধ্যে সংবাদ সম্মেলন করে আমারসহ ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রান্তিক কৃষকদের নাম করে ওই মাঠের জমিবিহীন কৃষক বা টাউটার বলে যে অসম্মান করেছেন আমরা
তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়।

লিখিত বক্তব্য শেষে একাধিক ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের উপস্থিতিতে তিনি, বিষয়টি ইউএনও, ডিসি, বিভাগীয় কমিশনার, ডিজিএফআই, এনএসআই, ডিএসবি’র উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষন করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2021 satkhiratimes24.com
Theme Customized By BreakingNews