1. altafbabu1@gmail.com : news :
  2. altafbabu1@gmail.com : Satkhira Times : Satkhira Times
August 3, 2021, 10:19 pm
Title :
কলারোয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতে ৩টি মামলায় আর্থিকদন্ড বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালনে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদের প্রস্তুতি সভা দেবহাটার অস্ত্রধারী ভুমিদস্যু ইসমাইল বাহিনীর দৌড়ঝাঁপ শুরু : গ্রেপ্তারের দাবী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণই বাংলাদেশের উন্নতি-প্রধানমন্ত্রী খুলনা বিভাগে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা বিতরণ অব্যাহত অক্সিজেন সিলিন্ডারের পাশাপাশি ঔষধও সরবরাহ করবে সাতক্ষীরা জেলা বিএনপি কলারোয়ায় শিক্ষক আব্দুল অহাব’র মৃত্যুতে মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির শোক জ্ঞাপন সাতক্ষীরা জেলা আ.লীগের শহরে বসবাসরত নেতৃবৃন্দের নিয়ে ৪ আগস্ট বিকালে জরুরি সভা ‘করোনায়’ কর্মহীন-অসহায় মানুষের মাঝে কলারোয়া পৌরসভার নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান শ্যামনগরে ইউনিয়ন পর্যায়ে ভ্যাকসিন প্রদান বিষয়ে মতবিনিময় সভা

তালা সার্জিক্যাল ক্লিনিকে প্রসূতিকে জিম্মি করে অতিরিক্ত টাকা দাবির অভিযোগ

  • আপডেট সময় Tuesday, March 23, 2021

আজমল হোসেন জুয়েল, তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : সাতক্ষীরার তালা সার্জিক্যাল ক্লিনিক চিকিৎসা সেবার নামে যেন এক কসাই খানা। ক্লিনিকটির বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় নানা অভিযোগ উঠলেও কর্তৃপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করতে পারেনি। ফলে রোগীদের ভোগান্তি বেড়েই চলেছে।

সর্বশেষ গত ২০ মার্চ শিলা খাতুন নামে সিজারিয়ান রোগীকে অক্সিজেন ছাড়াই সিজার সম্পন্ন করেন তারা। এতে মা ও নবজাতক দু’জনের অবস্থাই শংকার মধ্যে পড়ে। এক পর্যায়ে ২২ মার্চ সকালে নবজাতকের অবস্থা শংকটাপন্ন হওয়ায় তাকে খুলনা শিশু হাসপাতালে রেফার করেন তারা। আজ ২৩ মার্চ শিশুটির প্রয়োজনে সেখানকার ডাক্তাররা তার মাকে খুলনায় নেওয়ার নির্দেশ দিলে বিয়টি তালা সার্জিক্যাল ক্লিনিক কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। তবে বেকে বসেছেন কর্তৃপক্ষ। তাদের দাবি, চুক্তির বাইরে মোট ১১ হাজার টাকা না দিলে রোগী ছাড়বেননা তারা।

প্রসঙ্গত, শিলার সিজারে ওটি ঔষধ কেবিনসহ চুক্তি ছিল ৯ হাজার টাকা দিতে হবে। তবে বর্তমানে তারা দাবি করছেন, ১১ হাজার টাকা। একদিকে কর্তৃপক্ষের ভূলে যেখানে মা ও শিশুর জীবন যেখানে সংকটাপন্ন সেখানে উল্টো তারা রোগীকে জিম্মি করে অতিরিক্ত টাকা দাবি করছেন।

সর্বশেষ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রোগীর পরিবার ক্লিনিকের নীচ তলায় ক্লিনিক মালিক কথিত ডাক্তার বিধানের জন্য অপেক্ষা করলেও নীচে নামছেননা তিনি। ম্যানেজার বলছেন, টাকা দিয়ে রোগী নিয়ে যান। নির্দিষ্ট সময়ের আগেই রোগীকে নিতে তার পরিবার ৮ হাজার টাকা দিতে চাইলেও তারা বলছেন আরো ৩ হাজার টাকা দিতে হবে। এমন পরিস্থিতিতে তারা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2021 satkhiratimes24.com
Theme Customized By BreakingNews