ইরানের তৈরি উন্নত প্রযুক্তির নতুন স্যাটেলাইট ‘জাফর’ সফলভাবে উৎক্ষেপণ করা হলেও তা কক্ষপথে পৌঁছাতে পারেনি।

রোববার তেহরানের দক্ষিণ-পূর্বে মরুভূমি এলাকা সেমনানের ইমাম খোমেনি স্পেস সেন্টার থেকে স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপণ করা হয়েছিল। কিন্তু কম গতির কারণে সিমোরগ রকেট স্যাটেলাইটটি মহাকাশে স্থাপন করতে ব্যর্থ হয়।

ইরানের মহাকাশ সংস্থার মুখপাত্র আহমাদ হোসেইনি বলেন, ‘সিমোর্গ’ স্যাটেলাইট ক্যারিয়ার সাফল্যের সঙ্গে স্যাটেলাইটটিকে মহাকাশে নিয়ে যায়, কিন্তু স্যাটেলাইটটি কক্ষপথে স্থাপনের জন্য ক্যারিয়ারের যে গতিতে পৌঁছানো দরকার ছিল তা সম্ভব হয় নি। এ কারণে সুনির্দিষ্ট কক্ষপথে যেতে পারে নি জাফর স্যাটেলাইট।

স্যাটেলাইট সুনির্দিষ্ট কক্ষপথে পৌঁছাতে ব্যর্থ হওয়ার পর ইরানের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ অযারি জাহরোমি বলেছেন, আমরা থেমে থাকব না। আমরা আরও নতুন স্যাটেলাইট পাঠাব।

‘জাফর’ নামের নতুন স্যাটেলাইটটি শান্তিপূর্ণ কাজের জন্য ব্যবহার করা হবে বলে দাবি তেহরানের। তবে ওয়াশিংটনের অভিযোগ, স্যাটেলাইটের ছদ্মবেশে ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানো হচ্ছে।

এটির মাধ্যমে পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা আড়াল করা যাবে বলেও অভিযোগ তুলেছে ওয়াশিংটন। এর আগে এটাকে তেহরানের ‘উসকানিমূলক’ কর্মকাণ্ড বলেও হুশিয়ারি দেয় মার্কিন কর্মকর্তারা।

২০১৫ সালে পাঠায় ফজর (ঊষা) নামের আরেকটি স্যাটেলাইট। এই স্যাটেলাইটটি উঁচুমানের ছবি ধারণ করে পৃথিবীতে পাঠাচ্ছে। গত বছরের জানুয়ারিতে কারিগরি ত্রুটিতে ব্যর্থ হয় ইরানের তৈরি পায়াম স্যাটেলাইটের উৎক্ষেপণ।