১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। সারাবিশ্বে বিভিন্ন আয়োজনের মাধ্যমে দিবসটি উদযাপন করা হয়। দিবসটি ঘিরে বিশেষ করে প্রেমিক যুগলের থাকে জল্পনাকল্পনা ও নানান পরিকল্পনা। কিন্তু রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল তরুণ ঠিক এর উল্টো।

‘তুমি কে? আমি কে?- বঞ্চিত, কেউ পাবে তো কেউ পাবে না তা হবে না তা হবে না। দেহ দিয়ে প্রেম নয় মন দিয়ে প্রেম হয়, প্রেমের নামে প্রহসন চলবে না চলবে না।’ এমন সব স্লোগান নিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) প্রেম বঞ্চিত সংঘের ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরীর পেছনের আমতলা থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের প্রধান সড়ক ও ভবন প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় আমতলায় এক সমাবেশে মিলিত হয়।

বাংলাদেশ প্রেম বঞ্চিত সংঘের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মনির মণ্ডল এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেম বঞ্চিত সংঘের সভাপতি নুরুল হোসেন জীমের নেতৃত্বে এ সময় প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নেন।

কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সভাপতি মনির মণ্ডল বলেন, বাংলাদেশ প্রেম বঞ্চিত সংঘ আমরা কখনো প্রেমের বিরোধী নই। তবে ১৪ই ফেব্রুয়ারী প্রেমের নামে যে ভন্ডামি চলে তার প্রতিবাদ করছি। একজন চার পাচঁটা করে প্রেম করে আমরা তার বিরোধী। আমরা প্রেমের সুষম বণ্টন চাই।

এছাড়া আয়োজনের মধ্যে আরো আছে কবিতা উৎসব, গণস্বাক্ষর কর্মসূচি, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও দরিদ্র-পথশিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ।

এদিকে, বিশ্ব ভালবাসা দিবসে প্রেমের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় চিরকুমার সংঘ। বেলা ১১টায় চিরকুমার সংঘের সভাপতি হাসান রেজা ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসানের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিলে শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।

বিক্ষোভ মিছিলের আগে সংগঠনটির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে একজনকে আজীবন চিরকুমার, দুইজনকে জাতীয় চিরকুমার ও একজনকে বঞ্চিত চিরকুমার এবং আর একজনকে বহিষ্কার করা হয়।