রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে চাকরিচ্যুত করার হুমকির অভিযোগ এনে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন ওই স্কুলে প্রভাষক দুরুল হুদা।

সোমবার সকালে তিনি মতিহার থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম মাসুদ ভারভেজ।

জিডিতে দুরুল হুদা উল্লেখ করেন, আমি ২০১৭ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি রাবি স্কুল এন্ড কলেজে প্রভাষক পদে যোগদান করি। কলেজের অধ্যক্ষ অবসরে গেলে উপাধ্যক্ষ জনাব মো. শফিউল আলম ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব প্রাপ্ত হন।

পরবর্তীতে অধ্যক্ষ পদে নিয়োগ প্রাপ্ত হলে আমাকে তার প্রথম কন্যার সাথে বিবাহের প্রস্তাব দেন। বিয়েতে সম্মত না হয়ে অন্যত্র বিয়ে করলে এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে চাকরিচ্যুত করার হুমকি দেখায় এবং অবৈধভাবে শিক্ষক নিয়োগের চেষ্টা চালান।

উক্ত নিয়োগে আমিসহ অন্যান্য শিক্ষকগণ প্রতিবাদ করলে অন্যদেরও চাকরিচ্যুত করার হুমকি দেন। এরই ধারাবাহিকতায় তার স্ত্রী ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু তাকে দিয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ ধারায় মতিহার থানায় মামলা দায়ের করেন।

তিনি আরও উল্লেখ করেন, আমি মামলায় জামিন প্রাপ্ত হয়ে বের হয়ে আসলে অধ্যক্ষ এবং তার স্ত্রী মিথ্যা মামলায় আমাকে হয়রানির পর পুনরায় চাকরি ছাড়ার জন্য বিভিন্ন মাধ্যমে চাপ প্রয়োগ করেন। চাকরি ছাড়তে রাজি না হওয়ায় পুনরায় একটি পত্রিকায় গত ১৬ ফেব্রুয়ারি তারা প্রভাবিত করে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে জামিন বাতিলের অপচেষ্টা চালাচ্ছে এবং চাকরিচ্যুতসহ জীবন নাশের হুমকি প্রদান করেছেন। তারা বলে বেড়াচ্ছেন খবরের কাগজে মিথ্যা খবর প্রকাশ করে জামিন বাতিলে ব্যবস্থা গ্রহণ করব

ডিজির বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু বলেন, দুরুল হুদা জিডিতে যা বলেছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। চাকরিচ্যুত করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাকে চাকরিচ্যুত কেন করতে যাব। বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন আছে সেই আইন অনুযায়ী সাময়িক বহিস্কার করার নিয়ম আছে। জীবননাশের হুমকির বিষয়ও সম্পূর্ণ মিথ্যা দাবি করে বলেন, তাকে কোনো ধরনের হুমকি দেওয়া হয়নি।