রাত পোহালেই শুরু নারী ক্রিকেট বিশ্বকাপের সপ্তম আসর। এবারের আসরে স্পষ্টতই ফেবারিট চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া। শিরোপার দাবিদার হতে পারে ভারত বা ইংল্যান্ডের মেয়েরা। এর বাইরে চমক দেখাতে পারে যে কোনো দেশ। তার মধ্যে অন্যতম সালমা খাতুনের বাংলাদেশ।
মূল প্রতিযোগিতা শুরুর আগে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। থাইল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেসে গেলেও দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তানকে উড়িয়ে দিয়েছে জাহানারা আলমরা।

সিডনিতে শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া বিশ্বকাপের এবারের আসরের আগে বাংলাদেশ দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের ওপর নজর থাকবে ক্রিকেটভক্তদের।

এর আগে কখনই অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ম্যাচ খেলেনি বাংলাদেশ নারী দল। কখনই অস্ট্রেলিয়া বা নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে মাঠে নামেনি তারা। তাই এবারের বিশ্বকাপ সালমা খাতুনের দলের জন্য একটি চ্যালেঞ্জ।

বাংলাদেশকে আশা যোগাচ্ছেন ২৩ বছর বয়সী উইকেটরক্ষক-ব্যাটার নিগার সুলতানা। ব্যাট হাতে যে কোনো ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেয়ার ক্ষমতা রাখেন নিগার। তার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়তে পারেন অলরাউন্ডার রুমানা আহমেদ। তাদের দু’জনেরই আছে অস্ট্রেলিয়ার ঘরেোয়া প্রতিযোগিতা বিগ ব্যাশে খেলার অভিজ্ঞতা।

বোলারদের মধ্যে চোখ থাকবে স্পিনার নাহিদা আক্তার ও পেসার রিতু মনির দিকে। মায়াবী ঘূর্ণিজাদুতে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে পারেন নাহিদা। আর দারুণ পেসে প্রতিপক্ষের ব্যাটারদের বিপদে ফেলতে পারেন রিতু। এর পাশাপাশি আছেন দলের দুই পরীক্ষিত সেনানী জাহানারা আলম ও খাদিজা তুল কুবরা।

দলের অধিনায়ক হিসেবে থাকছেন দেশের নারী ক্রিকেটের সবচেয়ে অভিজ্ঞ সালমা খাতুন। এর আগে বাংলাদেশের চারটি বিশ্বকাপের নেতৃত্ব দিয়েছেন এই সালমা খাতুনই। তার অভিজ্ঞতার ছায়াতলে তারুণ্যনির্ভর এক বাংলাদেশকেই দেখবে ক্রিকেটবিশ্ব।

২০১৮ সালে এশিয়া কাপে ভারতকে দুইবার হারিয়েছিলো বাংলার মেয়েরা। এবার সেই ধারাটাই ধরে রাখার মিশনে অস্ট্রেলিয়ায় বিশ্বকাপ খেলতে নামছে টাইগ্রেসরা।