ভারত সফরে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) এবং জাতীয় নাগরিকত্ব তালিকার (এনআরসি) বিষয়টি তুলবেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
শুক্রবার হোয়াইট হাউজের জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তা সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান। তিনি বলেন, উভয় দেশের গণতান্ত্রিক ধারা ও ধর্মীয় স্বাধীনতার বিষয় আলোচনায় তুলে ধরবেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সরকারি পর্যায়ে এবং অবশ্যই ব্যক্তিগত পর্যায়ে তিনি এ ইস্যুতে কথা বলবেন।

জানা গেছে, সিএএ এবং এনআরসি ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে আলোচনার কোনো পরিকল্পনা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের আছে কিনা এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা জানান।

এনডিটিভি’র খবরে বলা হয়, পার্লামেন্টে সিএএ এবং আসাম রাজ্যে এনআরসি বাস্তবায়নের ঘটনায় ভারতের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ও ঐতিহ্য মেনে চলা নিয়ে দেশটির ওপর ওয়াশিংটনের ক্রমবর্ধমান উদ্বেগের মধ্যে এমন মন্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ।

হোয়াইট হাউজের ওই কর্মকর্তা আরো বলেন, আমাদের সার্বজনীন মূল্যবোধ, আইন শৃংখলা সমুন্নত রাখার বিষয়ে অভিন্ন প্রতিশ্রুতি লালন করি আমরা। ভারতে গণতান্ত্রিক রীতি ও প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা রয়েছে। এসব ধারাকে সমুন্নত রাখতে আমরা অব্যাহতভাবে ভারতকে উৎসাহিত করে যাবো। আপনারা যেসব ইস্যু উত্থাপন করেছেন তার কিছু নিয়ে আমরাও উদ্বিগ্ন। আমি মনে করি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠকে এসব বিষয়ে আলোচনা করবেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। বিশেষ করে ‘ধর্মীয় স্বাধীনতার বিষয়টি’ ট্রাম্প তুলে ধরবেন যা তার প্রশাসনের জন্য ‘খুবই গুরুত্বপূর্ণ’। একই সঙ্গে জনসম্মুখে দেয়া বক্তব্যে এবং ব্যক্তিগতভাবেও দুদেশের গণতান্ত্রিক ও ধর্মীয় স্বাধীনতার ঐতিহ্য নিয়ে কথা বলবেন ট্রাম্প।

আরেক প্রশ্নের জবাবে হোয়াইট হাউসের এই কর্মকর্তা বলেন, কাশ্মীর ইস্যুতে ট্রাম্প ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেবেন। কাশ্মীর ইস্যুটিও তুলে ধরা হবে। ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা প্রশমনে ট্রাম্প খুব আগ্রহী হবেন এবং মতপার্থক্য দূরে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে বসতে দুপক্ষকে উৎসাহ দেবেন।

এদিকে ভারত সফরের আগ মুহূর্তে ট্রাম্পের একের পর এক টুইটে অস্বস্তিতে পড়েছে মোদি প্রশাসন। এ সফরে দুদেশের মধ্যে বাণিজ্য চুক্তি হচ্ছে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন ট্রাম্প। স্থগিত থাকছে জিএসপি সুবিধাও। ভারত যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ‘ভালো ব্যবহার’ করছে না বলেও অভিযোগ মার্কিন প্রেসিডেন্টের।