হাফিজুর রহমান শিমুল : আঠার বছর যাবৎ শিকলবন্দী, মানষিক ভারসাম্যহীন নিত্যানন্দের চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছিলেন কালিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জননেতা সাঈদ মেহেদী। তারই ধারাবাহিকতায় বুধবার(১৬ এপ্রিল) দুপুরে নিত্যানন্দের সিটিস্কানিং ও ফিজিওথ্রাপির ব্যবস্থা করলেন তিনি।

খুলনা মে‌ডি‌কেল ক‌লেজ হাসপাতা‌লে ‌চি‌কিৎসার জন্য নিজ দা‌য়ি‌ত্বে উপস্থিত থেকে মানষিক চিকিৎসকের নিকট ভ‌র্তি কর‌েছিলেন বুধবার(৪ মার্চ) সকালে । নিত্যানন্দের দায়িত্ব নিয়েই থেমে যাননি কালিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী।

তার চিকিৎসার খোঁজ খবর ও তার পরিবারের সার্বিক খোঁজ খবর ঠিকমত নিয়ে চলেছেন। করোরা ভাইরাস এর প্রাদুর্ভ প্রতিরোধে ব্যাপক জনসচেতনতায় প্রচার প্রচারণার পাশাপাশি এলাকার অসহায়, দুস্থ ও হতদরিদ্রদের মাঝে ত্রান সামগ্রী প্রদান করে চলেছেন।

করোনার আতঙ্কে সকলেই যখন হোম কোয়ারেন্টাইনে তখন তিনি শত ব্যস্ততার মাঝেও বুধবার সকালে ছুটে গেলেন খুলনা মেডিকেল হাসপাতালে বহুলালোচিত কুশুলিয়া রতখোলার পাশে অযত্ন অবহেলা আর চরম অমানবিক ভাবে পড়ে থাকা সেই নিত্যানন্দের পাশে।

সত্যিই তিনি জনগনের প্রকৃত সেবার ব্রত নিয়েই এগিয়ে চলেছেন কাঙ্খিত লক্ষ্যে।

উল্লেখ্য, নিত্যানন্দকে আগে সাতক্ষীরার সু-যোগ্য জেলা প্রশাসক মহোদয়ের ব্যবস্থাপনায় কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে পাবনা মানষিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

কিন্তু নিত্যানন্দের শারিরীক অবস্থা মুমুর্ষ হওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে ফেরত পাঠান। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তার থাকার ঘর নির্মান ও ঘরের আসবাবপত্র প্রদান করা হয়।