স্টাফ রিপোর্টার : প্রথম বারের মতো সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় হারভেস্টার মেশিনের মাধ্যমে ধান কাটা, মাড়াই ও বস্তাবন্দি কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। বুধবার সকালে সদর উপজেলার বাইপাস রোড সংলগ্ন কাশেমপুর মাঠে ধান কাটা ও মাড়াই কাজের উদ্বোধন করেন।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়ি সাতক্ষীরার ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মো. নুরুল ইসলাম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পরিচালক মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, সদর উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ আমজাদ হোসেন, উপ-সহকারী কৃষি অফিসার রঘুনাথ গুহ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন যেখানে কৃষি শ্রমিক দিয়ে বিঘা প্রতি খরচ ৮-৯হাজার টাকা, সেখানে একটি কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন দিয়ে প্রতি ঘন্টায় এক একর জমির ধান কাটা, মাড়াই ও বস্তাবন্দি করতে কৃষকের মাত্র ২হাজার টাকা খরচ হবে। এতে সময় ও খরচ দুটোয় কম লাগবে।

খামারবাড়ি সাতক্ষীরার ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মো. নুরুল ইসলাম জানান, করোনা ভাইরাসের কারণে কৃষকরা সময়মত শ্রমিকের অভাবে ধান কাটতে না পেরে সমস্যায় পড়ছে।

আমরা সরকারি উন্নয়ন সহায়তার মাধ্যমে সরবরাহকৃত কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সাতক্ষীরার মাধ্যমে জমির ধান কাটার ব্যবস্থা করেছি।

ইতিমধ্যে কালিগঞ্জ, তালা, সাতক্ষীরা সদরে ৩টি মেশিন চাষীদের কাছে হস্তান্তর করেছি বাকি উপজেলা গুলোতে তাড়াতাড়ি পৌছে দেওয়া হবে। প্রতি ঘন্টায় ৩ বিঘা জমির ধান কর্তন করা যাবে এতে ১২ লিটার তৈল খরচ হবে ফলে কৃষকরা লাভবান হবে।

কৃষি বিভাগের তথ্য অনুসারে, এ বছর সাতক্ষীরা জেলায় ৭৫ হাজার ৫শত হেক্টর জমিতে বোর ধানের আবাদ হয়েছে। তা থেকে ৩ লক্ষ ৪০ হাজার মে.টন চাউল উৎপাদন হবে।