মাহমুদুল হাসান শাওন, দেবহাটা : দেবহাটায় সুষ্ঠভাবে অভ্যন্তরীন ধান সংগ্রহের জন্য উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের প্রত্যেকটি ওয়ার্র্ড ভিত্তিক লটারীর মাধ্যমে উপকারভোগী ৭৩৩ জন কৃষককে নির্বাচন করা হয়েছে।

বৃহষ্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় দেবহাটা উপজেলা পরিষদ হলরুমে আনুষ্ঠানিকভাবে লটারীর মাধ্যমে সদর ইউনিয়নের প্রত্যেকটি ওয়ার্ড থেকে কৃষকদের বাছাই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।

বাছাই কার্যক্রমের উদ্বোধনকালে দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন দেবহাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল গণি।

বিশেষ অতিথি ছিলেন দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু বকর গাজী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শরীফ মোহাম্মাদ তিতুমীর, দেবহাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল ওহাব, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান শাওন, কৃষি সম্প্রসারণ

কর্মকর্তা শওকাত ওসমান, খাদ্য নিয়ন্ত্রক মনিরুজ্জামান, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোস্তফা মোস্তাক আহমেদ, আফজাল হোসেন প্রমূখ।

এসময় দেবহাটা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া আফরীন বলেন, সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক সুষ্ঠভাবে কৃষকদের থেকে ধান সংগ্রহ নিশ্চিত করতে উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের প্রত্যেকটি ওয়ার্ড ভিত্তিক লটারীর মাধ্যমে ২৬৩০ জন আবেদনকারীর মধ্য থেকে ৭৩৩ জন কৃষককে নির্বাচন করা হয়েছে।

এসকল কৃষকদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ১ মেঃ টন করে মোট ৭৩৩ মেঃ টন ধান সংগ্রহ করা হবে। এসকল কৃষকদের মধ্যে যাদের কাছ থেকে আমন মৌসুমের ধান সংগ্রহ করা হয়েছিলো, সেসকল কৃষকরা বোরো মৌসুমের ধান দিতে পারবেননা।

তাছাড়া প্রাথমিকভাবে যাদেরকে নির্বাচন করা হয়েছে তাদের মধ্যে ভুয়া নাম পাওয়া গেলে কিংবা ধান চাষ করেনি অথচ কৃষি ভর্তুকির কার্ড মুনাফার লোভে দালাল চক্রের কাছে বিক্রি করেছে এমন কাউকে পাওয়া গেলে তাদের নাম তালিকা থেকে বাদ দেয়া হবে এবং আগামী তিন বছরের জন্য তাদেরকে ব্লাকলিস্টে রাখা হবে।

পাশাপাশি ধান সংগ্রহ কার্যক্রমে কোন দূর্র্র্র্নীতি, অনিয়ম হলে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও জানান ইউএনও সাজিয়া আফরীন।