(উৎসর্গ: কবি ও সাংবাদিক ফখরে আলম)
—————————
মাথার উপর গনগনে সূর্য জানান দিয়ে গেল আপনি নেই
প্রচন্ড তাপদাহেও আপনাকে দেখতে এলো
কত শত সহস্র মানুষ
কী সুশৃংখল
কারো কোন কষ্ট নেই
প্রচন্ড দুঃখ আছে।
সবাই বেদনায় ভারাক্রান্ত মন নিয়ে আপনার মুখখানি দেখছে
কেবল আপনি দেখছেন না।
হয়ত দেখছেন আমরা জানি না।
ঊদীচীর সামনে আপনি আমি আর হারুণ ভাই
সেই শেষ সাক্ষাত- শেষ দেখা।
সেদিন আপনার দু’নয়ন ছিল অন্ধ
কিন্তু আপনার তুতীয় নয়ন ছিল স্পষ্ট
তা না’হলে এই করোনা মহামারীর অকালেও আপনি
আমাদের জন্য দুই দু’খানা বই লিখে যেতে পারতেন?
পারতেন না।
ভাবি’র সাদা শাড়ির অবিশ্রান্ত শোকগাথা
মাটি’র বুকফাটা কান্না
বিজয়ের বাবা’র অভাব
রয়ে গেল সব।
আপনি দুর থেকে দেখবেন
হয়তো আপনি কাঁদবেন
অথবা কৃষকের ভরা ফসলের
মাঠ দেখে হাসবেন।
শ্রমিকের সমাজতন্ত্রের চীরবাসনা বুকে বাঁধবেন
কিন্তু আপনি তো আর বলবেন না
আপনি তো আর কবিতা লিখবেন না।
মৌলবাদ সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে
কলম তুলবেন না।
যে মানুষের কোথায় যাওয়ার জায়গা ছিল না
তাদের জন্য তো আপনি ছিলেন
এখন তারা
কোন ফখরে আলমের কাছে যাবে ?
সেই যোগ্য উত্তরসূরী আমরা হতে পারব কি কোনদিন ?
১৪ মে ২০২০