খুলনায় সেনাবাহিনী প্রধানের পক্ষ থেকে দরিদ্র পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে আর্মি ট্রেনিং এন্ড ডকট্রিন কমান্ড (আর্টডক) এর অধীনস্ত এএসসি সেন্টার এন্ড স্কুল কর্তৃক খুলনা শহরের ১১ নং ওয়ার্ড, ২৭ নং ওয়ার্ড, শিরোমনি, ফুলবাড়ী, গিলাতলা, খালিশপুর, বয়রা, বানিয়া খামার এবং দৌলতপুর এলাকায় ঘুরে শতাধিক দুস্থ ও হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে শুকনা রশদ ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। আর্টডক এর অধীনস্ত এএসসি সেন্টার এন্ড স্কুল এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায় কোভিড-১৯ ভাইরাস সংক্রমণের প্রেক্ষিতে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে সেনাসদর এর নির্দেশক্রমে আর্মি ট্রেনিং এন্ড ডকট্রিন কমান্ড (আর্টডক) এর অধীনস্থ প্রশিক্ষণ সেন্টার ও প্রতিষ্ঠান সমূহ বেসামরিক প্রশাসনকে সহযোগীতার পাশাপাশি দরিদ্র ও দুস্থ জনসাধারণের জন্য জরুরী সাহায্য হিসেবে বিভিন্ন প্রকার ত্রাণসামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রেখেছে।

এছাড়াও সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে বৃদ্ধ ও সহায়সম্বলহীন পরিবারকে নিয়মিতভাবে চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। সম্প্রতি ঈদ উপলক্ষে সেনাবাহিনী প্রধান দুস্থ ও অসহায় মানুষের মাঝে বিশেষ উপহার হিসেবে শুকনা রশদ, সেমাই, চিনি, তেল এবং আনুসাঙ্গিক দ্রব্যসামগ্রী বিতরণের নির্দেশ প্রদান করেছেন।

সূত্র আরো জানায়, আর্টডকের ব্যবস্থাপনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে গত কয়েকদিনে ইতিমধ্যে আনুমানিক নয় হাজারেরও বেশি পরিবারের মধ্যে শুকনো খাবার, মাস্ক এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়েছে।

এছাড়াও আর্টডক এর অধীনস্ত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ইতিমধ্যে চট্টগ্রাম, রাজশাহী, নাটোর, সৈয়দপুর, যশোর ও বগুড়ায় দরিদ্র পরিবারের মাঝে শুকনো খাদ্য ও অন্যান্য সামগ্রী বিতরণ করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় সেনাবাহিনী প্রধানের পক্ষ থেকে শুক্রবার খুলনায় বিভিন্ন গ্রামের শতাধিক পরিবারের মাঝে এই ঈদ উপহার বিতরণ করা হয়।

তাছাড়া দেশব্যাপী লকডাউন ঘোষণার পর থেকে বিভিন্ন সময়ে এএসসি সেন্টার এন্ড স্কুল কর্তৃক পাঁচ শতাধিক পরিবারকে ইতোমধ্যে শুকনো রশদ ও খাদ্যসামগ্রী সরবরাহ করেছে।

সূত্র আরো জানায়, সেনা সদস্যদের জন্য বরাদ্দকৃত খাবার কম গ্রহণ করে সেখান থেকে সঞ্চিত রশদ ত্রাণ হিসেবে বিতরণ করা হয়। এই দুর্যোগকালীন সময়ে দরিদ্র পরিবার সমুহকে আর্মি ট্রেনিং এন্ড ডকট্রিন কমান্ড এর অধীনস্থ এএসসি সেন্টার এন্ড স্কুল এর মানবিক সহায়তা কার্যক্রম চলমান থাকবে বলেও জানায় সূত্রটি।

এছাড়াও ঘূর্ণিঝড় ” আমফান ” এর কারণে ক্ষতিগ্রস্থ জাহানাবাদ সেনানিবাসের নিকটবর্তী এলাকাসমূহে এএসসি সেন্টার এবং স্কুলের সৈনিকগণ কয়েকটি সহায় সম্বলহীন পরিবারের ঘড়বাড়ি মেরামত করে দেন।

এই সময় ঘড়বাড়ি মেরামতের জন্য টিন সহ অন্যান্য সরঞ্জামাদি প্রদান করা হয়। এছাড়াও এই সকল পরিবারকে সেনাবাহিনী প্রধানের তরফ থেকে উপহার স্বরুপ খাবার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।