খুলনা, ২০ আষাঢ় (০৪ জুলাই): খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী খুলনার সাতটি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকদের ন্যায্য পাওনা পরিশোধ করা হবে। সরকার দেশের শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের জন্য পাঁচ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। পঞ্চাশ শতাংশ নগদ এবং বাকি অর্ধেক মুনাফাভিত্তিক সঞ্চয়পত্রের মাধ্যমে পরিশোধ করা হবে।

মেয়র আজ (শনিবার) দুপুরে নগর ভবন সম্মেলনকক্ষে খুলনার সাতটি পাটকলের সিবিএ ও ননসিবিএ শ্রমিক নেতৃবৃন্দদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন।
তিনি আরও বলেন, শ্রমিকবান্ধব সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রমিকদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন। সরকার এবং প্রাইভেট পাবলিক পার্টনারশিপ (পিপিপি) এর মাধ্যমে মিলগুলো চালু থাকবে।

পিপিপি’র আওতায় আধুনিকায়ন করে এসকল পাটকলগুলোকে উৎপাদনমূখী করা হবে। যারা সুস্থ শ্রমিক তাদের দিয়েই মিলগুলো চালানো হবে। শ্রমিকদের গ্র্যাচুইটি ও প্রভিডেন্ট ফান্ডের অর্থ চাকুরিবিধি অনুযায়ী পরিশোধ করা হবে। পাশাপাশি নিধারিত হারে গোল্ডেল হ্যান্ডশেকের সুবিধাও পাবেন।

মতবিনিময় সভায় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, খালিশপুর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মনিরুল ইসলাম বাশার, মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক মোঃ মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, সাবেক সংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আশরাফুল ইসলামসহ খুলনার সাতটি রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের সিবিএ ও ননসিবিএ শ্রমিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সকালে সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ‘মানবিক সহায়তা কর্মসূচির’ আওতায় নগরীর ২৩ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলরের কার্যালয় চত্বরে দুইশত জন দর্জি শ্রমিকদের মাঝে আট কেজি করে চালসহ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক রণজিৎ কুমার ঘোষ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।