দেবহাটা প্রতিনিধি : দেবহাটার ভুমিহীন জনপদ নোড়ারচকে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রুহুল কুদ্দুস  (৪৫) ও তাসলিমা খাতুন (৩০) নামের এক ভুমিহীন দম্পতিকে পিটিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা। মারপিটে আহত রুহুল কুদ্দুস দম্পত্তি নোড়ারচক মাঝপাড়া পাঞ্জেগানা মসজিদ এলাকার বাসিন্দা।

সোমবার সকাল ৬টার দিকে রুহুল কুদ্দুস দম্পতির বাড়ীতে ঢুকে তাদেরকে পিটিয়ে জখম করেন প্রতিপক্ষরা। বর্তমানে আহত রুহুল কুদ্দুসের স্ত্রী তাসলিমা খাতুন সখিপুরস্থ দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মারপিটের শিকার রুহুল কুদ্দুস জানান, রবিবার বিকালে ছাগল তাড়ানোকে কেন্দ্র করে তার স্ত্রী তাসলিমা খাতুন ও ছেলে মাসুম বিল্লাহকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে প্রতিবেশী আমিরুল ঢালীর স্ত্রী চায়না বেগম।

বিষয়টি নিয়ে উভয়ের মধ্যে মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়। সোমবার সকাল ৬টার দিকে সাতক্ষীরার সাবেক পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান হত্যাচেষ্টা মামলার আসামী সৈয়দ ঢালী, তার ছেলে একই মামলার অপর আসামী সাইদুল ঢালী, আমিরুল ঢালীর স্ত্রী চায়না বেগম ও ছেলে আল আমিন লাঠিশোঠা নিয়ে আকর্ষিক রুহুল কুদ্দুসের বাড়ীতে অনধিকার প্রবেশসহ তাকে ও তার স্ত্রী তাসলিমা খাতুনকে মারপিট শুরু করে।

মারপিটের একপর্যায়ে তাদের ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসলে গুরুতর আহত অবস্থায় তাদেরকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় প্রতিপক্ষরা। এসময় প্রতিবেশীরা আহত রুহুল কুদ্দুস ও তার স্ত্রীকে উদ্ধার করে সখিপুরস্থ দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে দেবহাটা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়েরের প্রস্তুতি চলছিলো বলে জানা গেছে।