নিজস্ব প্রতিনিধি : সাতক্ষীরায় এসএমই কৃষকদের পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাতক্ষীরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামার বাড়ির আয়োজনে ১৭ আগস্ট সোমবার বেলা ১২টায় সাতক্ষীরা সদর উপজেলার মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাতক্ষীরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বাদল চন্দ্র বিশ্বাস।

কৃষক পর্যায়ে উন্নতমানের ডাল, তেল ও মসল্লা বীজ উৎপাদন, সংরক্ষন ও বিতরণ(৩য় পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, সাতক্ষীরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণ অফিসার নূরুল ইসলাম, অতিরিক্ত উপ-পরিচালক (শস্য) জসীম উদ্দীন, জেলা বীজ প্রত্যয়ন অফিসার(ভারপ্রাপ্ত) ইয়াসমিন সুলতানা, বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুঠির শিল্প কর্পোরেশন, সাতক্ষীরার ডেপুটি ম্যানেজার গৌরব দাশ।

সদর উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ আমজাদ হোসেনের পরিচালনায় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, দেবহাটা উপজেলা কৃষি অফিসার শরীফ মোহাম্মদ তিতুমীর, শ্যামনগর উপজেলা কৃষি অফিসার এস এম এনামুল ইসলাম, তালা উপজেলা কৃষি অফিসার হাজেরা খাতুন, দেবহাটা উপজেলা কৃষি অফিসার শওকত হোসেন,

শ্যামনগর উপজেলা কৃষি অফিসার আবুল হাসনাত, সদর কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার প্লাবনী সরকার, কলারোয়া কৃষি অফিসার ইমরান হোসেন, প্রকৌশলী হারুন অর রশিদ, উপ-সহকারী কৃষি অফিসার রঘুজিৎ গুহ, অমল কুমার ব্যানার্জী, শেখ সিহান আলী।

অনুষ্ঠানে জেলা পর্যায়ে তিনটি ক্যাটাগরিতে সেরা এসএমই কৃষক পুরস্কার প্রদান করা হয়। মনিটরিং ইউনিয়নের বাছাইয়ে প্রথম হয়েছেন কলারোয়া উপজেলার কেরালকাতা ইউনিয়নের দরবাসা গ্রামের আতিয়ার রহমান, দ্বিতীয় হয়েছেন সদর উপজেলার কুশখালি ইউনিয়নের ভাদড়া গ্রামের মীর আবুল হাসান ও ৩য় হয়েছেন তালা উপজেলার শিবপুর গ্রামের রফিকুল ইসলাম। এছাড়া ১৬ জন এসএমই কৃষকদের শান্তনা পুরস্কার প্রদান করা হয়।

এসময় সাতক্ষীরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বাদল চন্দ্র বিশ^াস বলেন, আগস্ট মাস বাঙালির জাতির শোকের মাস। এ মাসেই হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে আমরা হারিয়েছিলাম। যে কারণে আজ বাংলাদেশ তলাবিহিন ঝুড়ি থেকে আধুনিক বিশে^র সাথে তাল মিলিয়ে মাথা উচু করে এগিয়ে চলছে।

তিনি আরো বলেন, আজ সাতক্ষীরার প্রতিটি বাড়িতে সবজি চাষাবাদ দেখে আসলেই ভালো লাগে। প্রতিটি বাড়িই যেন এক একটা খামার। এ অবস্থায় পৌছানোর পেছনেও বঙ্গবন্ধুর অবদান অনেক বেশি।