অনলাইন ডেস্ক : মিরপুর টেস্টের উইকেট পড়তে ভুল করে ফেলেছে বাংলাদেশ। যে কারণে রাখা হয়নি একাধিক পেসার, তিন বিশেষজ্ঞ স্পিনার নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়ে নামা। ম্যাচ শুরুর আগে বাংলাদেশ ধরেই নিয়েছিল শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের উইকেট হবে অতীতের মতো স্পিনিং।

সে কারণেই স্পিন ত্রয়ীর সঙ্গে একমাত্র পেসার আবু জায়েদ রাহি। যেখানে মিডিয়াম পেস বোলিং করেও একটি সাফল্য পেয়েছেন সৌম্য সরকার। আবু জায়েদের চার শিকার প্রমাণ দেয় পেসারদের জন্য বেশ ভালো সহায়তাই আছে উইকেটে।

প্রথম ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৪০৯ রানের জবাবে মিরপুর টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে বাংলাদেশ ৪ উইকেট হারিয়ে তুলেছে ১০৫ রান। যার তিনটিই নিয়েছেন ক্যারিবীয় দুই পেসার মিলে। ২২ গজে শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, আলঝারি জোসেফদের আগ্রাসন পেসারদের পক্ষেই কথা বলছে।

প্রথমদিনের খেলা শেষ আবু জায়েদ বলেছিলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় আমরা যেরকম আশা করেছিলাম, উইকেট ওই রকম না। উইকেটটা আরও ফ্ল্যাট, আরও সময় লাগবে উইকেটে টার্ন এবং আমরা যেটা আশা করছি সেটা পেতে।’

বাংলাদেশ যে স্পিনারদের দিয়েই ওয়েস্ট ইন্ডিজকে কাবু করতে চেয়েছিল সেটি স্পষ্ট হল দ্বিতীয় দিন শেষ তামিম ইকবালের কথায়। ভুলটা কোথায় সেটিও সামনে আসল।

একাদশে আরেকটা পেসার থাকলে উইন্ডিজ ইনিংসের চেহারা অন্যরকম হতে পারত কিনা, এ প্রশ্নের জবাবে টাইগার ওপেনার বললেন, ‘দেখেন যে পরিকল্পনা ছিল, সেটা তো যে উইকেট দেখছি সেটার ছিল না। যখন ঘরের মাঠে কোনো দল তিন স্পিনার নেয়, তখন এটা রকেট সায়েন্স না, বুঝতেই পারেন আমরা আরও বেশি স্পিন ধরবে এমন উইকেট প্রত্যাশা করি। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে এটা স্পিন হয়নি যে কারণেই হোক না কেনো। আমরা একটা পরিকল্পনা সেট করে এগিয়েছিলাম।’

‘এখন উইকেট স্পিনারদের সাহায্য না করায় এটা নিয়ে অনেক কথা হতে পারে। কিন্তু সামনে তাকাতে হবে। আপনি জানেন যে, আমরা টেস্ট জিতেছিলাম দুইটা বড় দলের সাথে, এমনকি এই ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথেই শেষ যখন জিতেছি তখনও একই কম্বিনেশনেই (স্পিনারের আধিক্য) সফল হয়েছি। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে উইকেট স্পিনারদের সাহায্য করেনি (এই ম্যাচে), দেখা যাক সামনে কী হয়।’

মিরপুরে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়াকে বাংলাদেশ টেস্ট হারিয়েছে স্পিনিং উইকেটে। ২০১৮ সালে এই মাঠেই বাংলাদেশের ঘূর্ণিজালে আটকা পড়েছিল উইন্ডিজ। মিরপুরের সে ম্যাচে সাকিবসহ খেলেছিলেন চার স্পিনার। ক্যারিবীয়দের ২০ উইকেটই ভাগাভাগি করে নিয়েছিল স্পিন চতুষ্টয়।

করোনার কারণে এক বছরেরও বেশি সময় পর মিরপুরে টেস্ট খেলতে নামা বাংলাদেশ হয়ত বুঝতে পারেনি দীর্ঘবিরতিতে পাল্টে যেতে পারে উইকেটের আচরণ! স্পিনারদের চেয়ে উইকেট থেকে পেসাররা পাচ্ছেন বেশি সুবিধা। যা বাংলাদেশের জন্য ভীতির কারণই বটে।

চট্টগ্রামে সিরিজের প্রথম টেস্ট জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে মিরপুরে খেলতে নামা ওয়েস্ট ইন্ডিজ আগ্রাসন চালাচ্ছে মুমিনুল হকের দলের উপর। দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশকে ব্যাকফুটে ঠেলে চালকের আসনে ক্যারিবীয়রা। শেষ সেশনে দলের চার উইকেট পতনে নিজেদের দায়ই বেশি দেখছেন তামিম।